Skip to content

হার মানবে কম্পিউটার ফন্টও, ১৪ বছর বয়সেই হাতের লেখার জন্য স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল প্রকৃতি

    প্রকৃতি মাল্য (Prakriti Mallla), বয়স মাত্র ১৪ বছর। বর্তমান সময়ে স্যোশাল মিডিয়ায় ব্যাপকহারে ভাইরাল (viral) হয়েছেন নেপালের সৈনিক ওয়াসিয়া মহাবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী। কারণ, তাঁর অসাধারণ হাতের লেখা। এমন হাতের লেখা, যা কম্পিউটার টাইপকেও হার মানাবে।

    বাচ্চাদের ছোটবেলায় হাতেখড়ি হওয়ার পর থেকে শুরু হয় জীবনের এক বড় অধ্যায়ের সূচনা। লেখাপড়ার মধ্য দিয়ে মানুষ জীবনের লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম হয়। আর এই চলার পথে মানুষের অন্যতম একটি বড় অংশ হল হাতের লেখা।

    সবার হাতের লেখা সমান হয় না। কারো হাতের লেখা খুবই সুন্দর,অনেকটা ছাপার অক্ষের মত দেখতে। আবার কারো বা খুবই খারাপ। অনেক চেষ্টার ফলে কিছুটা হলেও ঠিক করার চেষ্টা করছে। আবার অনেকের মানানসই, না খারাপ, না ভালো।

    তবে বর্তমান সময়ে হাতের লেখার জন্যই সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছে নেপালের প্রকৃতি মাল্য (Prakriti Mallla)। মাত্র ১৪ বছর বয়সী নেপালের সৈনিক ওয়াসিয়া মহাবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী প্রকৃতি মাল্য, তাঁর অসাধারণ হাতের লেখার জন্য স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল (viral) হয়েছেন। তাঁর অসাধারণ হাতের লেখা দেখে মুগ্ধ হয়েছে গোটা বিশ্ব।

    সম্প্রতি এক ব্যক্তি প্রকৃতির একপাতা হাতের লেখা স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন। আর তারপর মুহূর্তের মধ্যেই তা ভাইরাল (viral) হয়ে গিয়েছে। গোটা বিশ্বের মানুষ এই পোস্ট দেখে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছে। সেইসঙ্গে কমেন্ট করে প্রকৃতি মাল্যকে (Prakriti Mallla) অনেক শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি অনেক প্রশংসাও করেছেন অনেকে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি হস্তান্তর বিশেষজ্ঞরাও প্রশংসা করেছেন। সেইসঙ্গে নেপাল সরকারের থেকে স্বীকৃতিও পেয়েছে প্রকৃতি।

    হাতের লেখা দেখলে দেখা যাবে, অক্ষরের গড়ন এবং মাপ প্রায় নিখুঁত করে লিখেছেন প্রকৃতি। এমনকি দুটো শব্দের মাঝে সমান মাপের গ্যাপও রেখেছেন তিনি। এমন সুন্দর হাতের লেখার জন্য নেপাল সশস্ত্র বাহিনীর থেকে প্রশংসা স্বরূপ পুরস্কারও পেয়েছেন প্রকৃতি। বর্তমান সময়ে সুন্দর হাতের লেখার জন্য রীতিমত জনপ্রিয় হয়ে গিয়েছেন প্রকৃতি।