Skip to content

দৈর্ঘ্য শুনলে চোখ উঠবে কপালে, রইল ভারতের দীর্ঘতম মালগাড়ির বিবরণ

    img 20220725 143717

    প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ মানুষ নিজের প্রয়োজনে রেল পরিষেবা ব্যবহার করে থাকেন। কেউ যান নিজের কর্মস্থানে, কেউ বা আবার ভ্রমণে। এই রেলপথকেই দেশের গণপরিবহনের মেরুদন্ড বলা হয়ে থাকে। এদিকে আবার দেশের লাইফলাইন ভারতীয় রেল (Indian Railways) প্রায় দিনই যাত্রী সুবিধার্থে কিছু নতুন নতুন নিয়ম বের করে। যাতে করে যাত্রীরা সুন্দর ভাবে নিজেদের গন্তব্যে পৌঁছানোর পাশাপাশি আরামও পেতে পারেন।

    ট্রেন (tarin) তো চড়েন, কিন্তু জানেন কি আমাদের দেশেই এমন কিছু ট্রেন রয়েছে যার নাম শেষনাগ, অ্যানাকোন্ডা, বাসুকি! শুনতে অবাক লাগলেও, এমনই কিছু ট্রেন চালানো হয় আমাদের দেশে। তবে তা সাধারণ যাত্রীদের জন্য একেবারেই নয়, এগুলো হল মালগাড়ি (freight car)।

    train

    জানিয়ে রাখি, চারটি ট্রেনকে একসঙ্গে করে দীর্ঘতম মালগাড়িগুলোর মধ্যে তন্যতম হল শেষনাগ। আবার তিনটি ট্রেনকে একসঙ্গে করে তৈরি করা হয়েছে আরও একটি মালগাড়ি অ্যানাকোন্ডা। তবে এই সকল মালগাড়িকেও হার মানাবে বাসকি, যা কিনা ২৯৫ টি কোচ দিয়ে তৈরি।

    মালগাড়ি অনেকেই দেখে থাকেন। কিন্তু একবার ভেবে দেখুন, ২৯৫ টি কোচ দিয়ে তৈরি মালগাড়ি (freight car) সেটি কেমন দেখতে হবে। দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর নরেন্দ্র মোদী দেশের পণ্য পরিবহনকে আরো উন্নত করার দিকে জোর দেন। আর সেই কারণেই আলাদা করে একটি ট্রেন রুট তৈরি করেন, যেখান দিয়ে চলে এই স্পেশাল ট্রেন। তিনি নিজেই উদ্বোধন করেছিলেন এই মালবাহী করিডোর।

    রিপোর্ট বলছে, প্রায় ৩.৫ কিমি লম্বা এবং ২৯৫ টি কোচ দিয়ে তৈরি দেশের দীর্ঘতম এই মালগাড়িকে চালানোর জন্য রয়েছে ৫টি লোকোমোটিভ। শুধুমাত্র ভারতই নয়, বিশ্বের দীর্ঘতম এই মালগাড়ি (freight car) রায়পুর রেলওয়ে বিভাগের ভিলাই থেকে শুরু করে বিলাসপুর রেলওয়ে বিভাগের কোরবা পর্যন্ত যাতায়াত করে।