Skip to content

ভাগ্য খুললো ভারতবাসীর, এই রাজ্যে পাওয়া গেলো ৫৯ লাখ টন বহুমূল্য খনিজভান্ডার

    img 20230211 102015

    দেশে প্রথমবারের মতো লিথিয়ামের মজুদ পাওয়া গেল। জম্মু ও কাশ্মীরকে পৃথিবীর স্বর্গ বলা হয়। কিন্তু এই স্বর্গেই পাওয়া গেছে ৫৯ লাখ টনের অমূল্য ‘গুপ্তধন’। জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার মতে, জম্মু ও কাশ্মীরের রিয়াসি জেলায় একটি বড় লিথিয়ামের মজুদ পাওয়া গেছে। সেটা স্মার্টফোন, বৈদ্যুতিক ও সাধারণ গাড়ি বা অন্য কোনো ব্যাটারি পণ্যই হোক না কেন, এসবের মধ্যেই লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়।

    img 20230211 100058

    লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি আগামী সময়ে শক্তির প্রধান উৎস হবে বলে মনে করা হচ্ছে। বিশ্বের সব দেশই পেট্রোলিয়াম পণ্যের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে আনছে। এর মধ্যে লিথিয়ামের একটি বড় অবদান রয়েছে। এটি পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তি সঞ্চয় করতে ব্যবহৃত হয়। একসময় যে লিথিয়ামের কোনো চাহিদা ছিল না, তা এই বিপ্লবী উদ্ভাবনের কারণে ‘সোনা’ হয়ে গেছে। ভারতেও লিথিয়ামের বিশাল মজুদ পাওয়া গেছে।

    রিপোর্ট অনুযায়ী, জম্মু ও কাশ্মীরের রেয়াসি জেলায় এই মজুত পাওয়া গেছে। জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার মতে, জম্মু ও কাশ্মীরে পাওয়া লিথিয়ামের মজুদ ৫.৯ মিলিয়ন টন। এতে দেশে কোনো পরিবর্তন আসবে কিনা তা নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠেছে। এই লিথিয়াম মজুদ কি দেশে নতুন বিপ্লব আনবে? আমরা বহু বছর ধরে ভারতকে বিশ্বনেতা হওয়ার কথা শুনে আসছি। এই লিথিয়াম রিজার্ভ কি আমাদের জন্য বিশ্বগুরু হওয়ার সুযোগ?

    এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে, আমাদের লিথিয়ামের ভূমিকা বুঝতে হবে। আজ সারা বিশ্বে সবুজ শক্তিতে স্যুইচ করার কথা বলা হচ্ছে। সারা বিশ্বের সরকার পক্ষ কার্বন নির্গমন কমাতে সবুজ শক্তির প্রচার করছে। এতে লিথিয়ামের বড় ভূমিকা রয়েছে। লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারির সাহায্যে নবায়নযোগ্য শক্তি সংরক্ষণ করা যায়। এই শক্তি পরে ব্যবহার করা যেতে পারেও। লিথিয়াম ভবিষ্যতে একটি অপরিহার্য ধাতু হয়ে উঠবে।

    লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারিতে অন্যান্য ধাতুও থাকে, তবে এতে প্রধান ভূমিকা লিথিয়ামের। ইলেকট্রিক গাড়ি হোক বা বড় ইলেকট্রিক ট্রাক, সবগুলোতেই ব্যবহার করা হয় লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি। ভারতে লিথিয়াম মজুদের প্রাপ্যতার সাথে, দেশটি ব্যাটারি উত্পাদনকে বাড়িয়ে তুলতে সক্ষম হবে। আমরা যদি বিশ্বের প্রধান লিথিয়াম উত্পাদনকারী দেশগুলির কথা বলি তবে ভারতের নাম নথিভুক্ত হয় না।

    এই স্টক পেয়ে ভারতের অবস্থান মজবুত হবে। এবং লিথিয়ামের দাম পরিবর্তিত হয়। পুঁজিবাজারে যেমন একটি কোম্পানির শেয়ারের মূল্য প্রতিদিন নির্ধারিত হয়, তেমনি একটি পণ্যের বাজারও রয়েছে। এই বাজারে ধাতুর মূল্য নির্ধারিত হয়। খবরটি লেখার সময় লিথিয়ামের মূল্য ছিল ৪৭২৫০০ ইউয়ান (প্রায় 57,36,119 টাকা) প্রতি টন। সেই অনুযায়ী, ভারতীয় টাকায় এক টন লিথিয়ামের দাম ৫৭.৩৬ লক্ষ টাকা।

    img 20230211 100518

     

    ভারতে ৫৯ লাখ টন লিথিয়ামের মজুদ পাওয়া গেছে। অর্থাৎ আজকের সময়ে এর মূল্য হবে ৩৩,৮৪,৩১,০২১ লক্ষ টাকা (3,384 বিলিয়ন)। এই মূল্য আজকের হারে। বিশ্ববাজারের সাথে সাথে এর দাম প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হতে থাকে। লিথিয়াম উৎপাদনে শীর্ষে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ২০২১ সালের পরিসংখ্যান অনুসারে, অস্ট্রেলিয়া বিশ্বের লিথিয়ামের ৫২ শতাংশ উত্পাদন করে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে চিলি, যার ভাগ ২৪.৫ শতাংশ। তিন নম্বরে রয়েছে চীন, যা ১৩.২ শতাংশ লিথিয়াম উৎপাদন করে।