Skip to content

আমূল বদলে গিয়েছেন ৯০-র দশকের এই সকল অভিনেতারা, দেখে চেনার উপায় নেই

    img 20221205 145827

    ৯০’এর দশকের বিখ্যাত তারকা “সুনীল শেট্টি” (Sunil Shetti) সম্প্রতি একটি কথোপকথনে দাবি করেছেন যে, তিনি তার সমসাময়িক অক্ষয় কুমার এবং অজয় ​​দেবগনে’র থেকে পিছিয়ে ছিলেন। তার ক্যারিয়ারে মনোযোগ দিতে না পারার কারণে সুনীল শেট্টি হয়তো তার ক্যারিয়ারে ফ্লপ হয়েছেন এবং এখন একটি সহায়ক ভূমিকা পালন করছেন। কিন্তু এটা অস্বীকার করা যায় না যে তার এখনো প্রচুর ফ্যান ফলোয়িং রয়েছে, যার কারণে মানুষ এখনও তাকে অ্যাকশন স্টার হিসেবে মনে করেন। কিন্তু ৯০’এর দশকে সুনীল শেট্টিকে ঘিরে এমন অনেক তারকাই আত্মপ্রকাশ করেছিলেন, যারা পর্দা থেকে প্রায় উধাও হয়ে গেছেন। তাদের মধ্যে কেউ কেউ আছেন যাদের আজ চিনতে পারাটাও কষ্টের। এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানবো এমনই কয়েকজন তারকাদের সম্পর্কে।

    img 20221205 150057

    1. কামাল সাদনা:

    ১৯৯২ সালে ‘বেখুদি’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় ‘কমল সাদানা’র। তার প্রথম ছবি বক্স অফিসে তার সম্মান বাঁচাতে পারেনি। ‘রং’, ‘মহব্বত অর জং’, ‘অঙ্গারা’ এবং ‘ভিক্টোরিয়া নং ২০৩’-এর মতো শিরোনাম সহ তিনি এখনো পর্যন্ত প্রায় ১৫ টি ছবিতে কাজ করেছেন। কিন্তু তার প্রায় ৮ টি চলচ্চিত্র বিপর্যয় প্রমাণিত হয় এবং বাকিগুলি ফ্লপ হয়। কাজল অভিনীত ‘সালাম ভেঙ্কি’ দিয়ে প্রায় ১৫ বছর পর বলিউডে ফিরছেন কমল সাদনা।

    img 20221205 150043

    2. বিজয় আনন্দ:

    প্রথম চলচ্চিত্র ছিল যশ, সাল ১৯৯৬। বিজয় আনন্দে’র ডেবিউ ফিল্মটি একটি বিপর্যয় প্রমাণিত হয়েছিল। এর পরে তিনি ৬ বা ৭ টি ছবিতে কাজ করেছিলেন, যার মধ্যে অজয় ​​দেবগন এবং কাজল অভিনীত ‘পেয়ার তো হোনা হি থা’ এবং সিদ্ধার্থ মালহোত্রা-কাজল অভিনীত ‘শেরশাহ’ ছাড়া সবগুলিই হিট হয়েছিল। ২০২১সালে মুক্তি পাওয়া ‘শেরশাহ’-এ কিয়ারা আদভানির বাবার ভূমিকায় তাকে শেষবার পর্দায় দেখা গিয়েছিল।

    img 20221205 150029

    3. অবিনাশ ওয়াধাওয়ান:

    ১৯৮৬ সালে ‘পেয়ার হো গয়া’ ছিল তার প্রথম চলচ্চিত্র। অবিনাশ ওয়াধাওয়ান হয়তো ১৯৮৬ সালে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন, কিন্তু এই ছবিতে তার খুব ছোট ভূমিকা ছিল। ১৯৯০ সালে মুক্তি পাওয়া ‘আওয়াজ দে কাহান হ্যায়’-এ সম্ভবত তিনি প্রথমবারের মতো প্রধান নায়ক হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলেন। এই ছবিটি ফ্লপ প্রমাণিত হয়েছিল। পরবর্তীতে তিনি ৩০ টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন, তবে বেশিরভাগই ফ্লপ ছিল। অবিনাশ, যাকে শেষ দেখা গিয়েছিল ওয়েব সিরিজ ‘স্টেট অফ সিজ: 26/11’, এবং টিভি সিরিয়াল ‘আগার তুম না হতে’-তে।

    img 20221205 145954

    4. ফারদিন খান

    ১৯৯৮ সালে প্রথম চলচ্চিত্র ‘প্রেম আগগান’
    ফ্লপ ছবি দিয়ে অভিষেকের পর ফারদিন খান ২৫টিরও বেশি ছবিতে কাজ করেন। তার ‘জঙ্গল’, ‘ভূত’, ‘নো এন্ট্রি’, ‘হেই বেবি’ এবং ‘অল দ্য বেস্ট’-এর মতো ছবিগুলি সফল ছিল। কিন্তু একক অভিনেতা হিসেবে তিনি খারাপভাবে ফ্লপ হন। তার আগের ছবি ‘দুলহা মিল গয়া’ ২০১০ সালে মুক্তি পায়, যা একটি বিপর্যয় প্রমাণিত হয়েছিল। ‘বিস্ফোরণ’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় কামব্যাক করতে যাচ্ছেন তিনি। যার শুটিং চলছে বর্তমানে।