Skip to content

গোটা পৃথিবীকে অবাক করার মতো ৫টি অমূল্য সম্পদ যা মানুষের তৈরি, যার মধ্যে ভারতেই রয়েছে এই ২টি

    img 20230504 192922

    আমাদের পৃথিবীতে আশ্চর্য হওয়ার মত অনেক কিছুই রয়েছে, যা সাধারণত মানুষকে আকৃষ্ট করে থাকে। আমাদের পৃথিবী (Earth) বহু মূল্যবান এবং সুন্দর জিনিসে পরিপূর্ণ। এই পৃথিবীতে এমন অনেক কিছু আছে যা মানুষকে অবাক করে। আপনি আরও আশ্চর্য হবেন যখন আপনি জানবেন যে এগুলো মানবসৃষ্ট। কিন্তু এসব জিনিসের দাম সত্যিই অবাক করবে সবাইকে। আজকের তারিখে দাঁড়িয়ে এই সম্পদ গুলির যা মূল্য, সেটা বহু মানুষের ধারণার বাইরে। চলুন দেখে নেওয়া যাক এই মূল্যবান জিনিসের তালিকায় কী কী জিনিস রয়েছে?

    বিশ্বের সবচেয়ে দামি পাঁচটি মূল্যবান ও অনন্য জিনিস যা মানুষের তৈরি। প্রথমত, ভারতের সবচেয়ে ধনী শিল্পপতি মুকেশ আম্বানি, খবরের শীর্ষে পৌঁছানোর জন্য তিনি নানা পদক্ষেপ নিয়ে থাকেন। মুকেশ আম্বানির বাড়ির কথা সবার জানা। তার বাড়ির চিত্রকর্মগুলি প্রকৃত সম্পদের মধ্যে রয়েছে। যা বিশ্বের দামি জিনিসের তালিকায় শীর্ষে উঠে আসে।

    img 20230504 193222

    দ্বিতীয়ত, সবচেয়ে মূল্যবান বস্তুর মধ্যে একটি হল সুপ্রিম ইয়ট, যার মূল্য প্রায় ৪.৫ বিলিয়ন। কী দিয়ে তৈরি এই সাজসজ্জা জানলে অবাক হবেন। পুরো ইয়টটি সোনা এবং প্ল্যাটিনাম দিয়ে সজ্জিত।

    img 20230504 193021

    এই তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে শিল্পপতি মুকেশ আম্বানির বাড়ি। যার নাম অ্যান্টিলিয়া। মুম্বাইতে অবস্থিত মানবসৃষ্ট এই ব্যয়বহুল প্রাসাদটির মূল্য ২ বিলিয়ন ডলার। মুকেশ আম্বানির বাড়ি সত্যিই খুব আকর্ষণীয় এবং মূল্যবান সম্পদ।

    img 20230504 193432

    এছাড়াও তালিকায় রয়েছে ‘ভিলা লিওপোল্ডা’, যেটি বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল প্রাসাদগুলির মধ্যে একটি। এর দাম শুনলে আপনি সত্যিই অবাক হবেন। এই ব্যয়বহুল প্রাসাদটির মূল্য ৫০৬ মিলিয়ন ডলার।

    img 20230504 193910

    এরপর, ফরাসি শিল্পী পল সেজানের পেইন্টিংগুলি বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল জিনিসের একটি। এই শিল্পীর আঁকা “দ্য কার্ড প্লেয়ার্স” এর দাম ২৭৫ মিলিয়ন ডলার।

    img 20230504 193531

    এই ডিজিটাল যুগে আমাজনের অনলাইন শপিং এপ সম্পর্কে সবারই জানা। অ্যাপটির মাধ্যমে ঘরে বসেই পাওয়া যায় সব ধরনের জিনিস। এই কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা হলেন জেফ বেজোস। তিনি আঘাত সম্পত্তির মালিক। জেফ বেজোসের বাড়ি বেভারলি হিলস একটি অমূল্য সম্পদ। যার দাম ১৬৫ মিলিয়ন ডলার।